ফেব্রুয়ারিতে হচ্ছে না বইমেলা, মার্চেও রয়েছে অনিশ্চয়তা

বইমেলা

প্রতি বছর ফেব্রুয়ারি মাসজুড়ে অমর একুশে বইমেলা হলেও এবছর মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে তা হচ্ছে না। প্রকাশকরা মার্চ মাসে মেলা করার প্রস্তাব দিয়েছেন। তবে সেটা নিয়েও রয়েছে অনিশ্চয়তা।

আজ রোববার বইমেলা স্থগিতের বিষয়টি আবারও গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী।

সম্প্রতি বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি, বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতি এবং বাংলা একাডেমি বইমেলা নিয়ে বৈঠক করে। পরে মার্চ মাসে বইমেলা আয়োজনের প্রস্তাব সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। মন্ত্রণালয় এখনো এ ব্যাপারে কিছু জানায়নি।

রোববার বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী জানান, প্রতি বছর ১ ফেব্রুয়ারি বইমেলা উদ্বোধন হলেও এবার তা হচ্ছে না। পরিস্থিতি অনুকূলে এলে পরে কখন মেলা অনুষ্ঠিত হবে তা পরে জানানো হবে বলেও জানান তিনি।

হাবীবুল্লাহ সিরাজী বলেন, সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে, বর্তমান করোনা পরিস্থিতির কারণে শারীরিক উপস্থিতিতে ফেব্রুয়ারি মাসে বইমেলা আয়োজন সম্ভব নয়। তাই আমরা আপাতত মেলা স্থগিত ঘোষণা করেছি।

বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির রাজধানী কমিটির সভাপতি এবং অন্য প্রকাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম জানান, মার্চের ১ তারিখ থেকে ৩১ তারিখ পর্যন্ত যেন বইমেলার আয়োজন করা হয়, এ ব্যাপারে তারা সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছেন। তবে সেই প্রস্তাবের ব্যাপারে এখনো তাদেরকে কিছু জানানো হয়নি বলে জানান এই প্রকাশক।

বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির নির্বাহী পরিচালক মনিরুল হক গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা সরকারের কাছে মার্চে মেলা আয়োজনের আবেদন জানিয়েছিলাম। আজ পর্যন্ত এ বিষয়ে আমাদের কিছু জানানো হয়নি। ফলে মার্চে মেলা আয়োজনের সিদ্ধান্ত হলেও আমাদের পক্ষ থেকে তাতে অংশগ্রহণ কঠিন হয়ে যাবে। মেলা করার ব্যাপারে অন্তত দেড় মাস আগে সিদ্ধান্ত নিতে হবে বলে জানান এই প্রকাশক।

এর আগে করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় ভার্চুয়ালি বইমেলা আয়োজনের কথা ভাবনায় ছিল বাংলা একাডেমির। তবে এতে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দেয় লেখক ও প্রকাশকদের মধ্যে।

এদিকে দেশে করোনা পরিস্থিতি অনেকটা নিয়ন্ত্রণে থাকলেও শঙ্কা কেটে গেছে বলে মনে করেন না বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে, করোনা পরিস্থিতি আরও জটিল আকার ধারণ করতে পারে যেকোনো সময়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও রোববার একটি অনুষ্ঠানে ইঙ্গিত দিয়েছেন, মার্চে করোনার আরেকটি ধাক্কা আসতে পারে। এজন্য সবাইকে আরও বেশি স্বাস্থ্য সচেতন হওয়ার তাগিদ দিয়েছেন সরকারপ্রধান।

প্রতি বছর ফেব্রুয়ারির ১ তারিখ থেকে বইমেলা শুরু হয়ে পুরো মাস চলে। এবার ফেব্রুয়ারিতে প্রাণের এই মেলা হচ্ছে না এটা নিশ্চিত হয়ে গেল। এক মাস পিছিয়ে মার্চে বইমেলা করার যে পরিকল্পনা করেছিলেন প্রকাশকরা সেটাও অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছে। করোনা পরিস্থিতির অবনতি হলে বাতিল হতে পারে এবারের বইমেলা।

শেয়ার করুন
  • 4
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    4
    Shares