ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে হেফাজতের ভাংচুর ও সহিংসতায় বোর্ড অব ট্রাস্টিজের নিন্দা

নিজস্ব প্রতিবেদক

ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিশ্ববিদ্যালয়

গত ২৬ মার্চ ২০২১ইং ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে হেফাজতে ইসলামের কর্মী সমর্থকদের হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় নিন্দা জানানো হয়েছে বোর্ড অব ট্রাস্টিজের ২৮ তম সভায়। আজ ২৫ এপ্রিল ২০২১ ইং তারিখ সকাল ১১.০০টায় বোর্ড অব ট্রাস্টিজের ২৮ তম সভা অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সভাপিতত্ব করেন বিওটির চেয়ারম্যান ও বিশ্ববিদ্যালেয়র প্রতিষ্ঠাতা, এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি জনাব র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি।

গত ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের দিন সম্পূর্ণ বিনা উস্কানিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার একমাত্র উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে হেফজতে ইসলামের কর্মী সমর্থকরা ব্যাপক হামলা চালিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল, বিশ্ববিদ্যালয়ের আঙিনার ফুল বাগান ও অভ্যর্থনা কক্ষ ভাংচুর করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাপক ক্ষতি সাধণ করা হয়। একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেখানে দলমত নির্বিশেষে সকলেরই শিক্ষা লাভের সুযোগ রয়েছে এমন একটি সার্বজনীন প্রতিষ্ঠানে মৌলবাদ ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তির হামলা নি:সন্দেহে একটি ঘুণিত ও বর্বরোচিত কাজ। তাই বোর্ড অব ট্রাস্টিজের পক্ষ থেকে উক্ত ঘটনার তীব্র নিন্দা জানানো হয় এবং দোষীদের অতিদ্রুত আইনের আওতায় আনার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সদয় দৃস্টি আকর্ষণ করা হয়।

অনলাইন মিটিং প্ল্যাটফর্ম জুম এ্যাপের মাধ্যমে সকাল ১১.০০ টায় মিটিং শুরু হয়ে বেলা ১২.৩০ পর্যন্ত বিওটির এই সভা চলে। উক্ত সভায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য প্রফেসর ফাহিমা খাতুন ছাড়াও উপিস্থত ছিলেন এডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি, প্রফেসর ড. দেলোয়ার হোসেন, জনাব আখতারুজ্জামান, কাজী শফিকুল ইসলাম, প্রফেসর ড. তৌফিকুল ইসলাম মিথিল, প্রফেসর মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম, জনাব আশফাক উদ্দিন, জনাব মোকাই আলী লুৎফর রহমান, সৈয়দ এখতেশামুল বারী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার খন্দকার এহসান হাবীব।

শেয়ার করুন
  • 233
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    233
    Shares