‘মাস্টারশেফ অস্ট্রেলিয়া-২০২১’ চ্যাম্পিয়ন জাস্টিন, তৃতীয় কিশোয়ার

প্রবাস ডেস্ক

মাস্টারশেফ

রান্নাবিষয়ক রিয়েলিটি শো ‘মাস্টারশেফ অস্ট্রেলিয়া-২০২১’ এর দ্বিতীয় রানারআপ নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কিশোয়ার চৌধুরী। চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন ২৭ বছর বয়সী ভারতীয় বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলীয় জাস্টিন নারায়ণ; প্রথম রানারআপ হয়েছেন আরেক প্রতিযোগী পিট ক্যাম্পবেল।

তিন মাস চলার পর আজ মঙ্গলবার মাস্টারশেফ অস্ট্রেলিয়ার চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করা হয়। ‘মাস্টারশেফ অস্ট্রেলিয়া’র এবারের আসরের অন্যতম জনপ্রিয় প্রতিযোগী ছিলেন কিশোয়ার চৌধুরী। পুরো প্রতিযোগিতায় একের পর এক চমক দেখিয়েছিলেন তিনি।

তার রান্না করা কালা ভুনায় মুগ্ধ হয়েছিলেন মাস্টারশেফ অস্ট্রেলিয়ার বিচারকরা। এরপর লাউ চিংড়ি, বেগুন ভর্তা, খিচুড়ি, আমের টক, খাসির রেজালা, ফুচকা, চটপটি, সমুচার রেসিপি দিয়ে রীতিমতো মাতোয়ারা করেন সবাইকে।

এ খাবার তৈরি করে কিশোয়ার বলেন, এটা কখনোই কোনো রেস্তোরাঁয় পাওয়া যাবে না। এ সহজ খাবার বিচারকরা পরম তৃপ্তি সহকারে খেয়েছেন এবং বলেছেন এটা খুবই সাধারণ খাবার হলেও অনেক শক্তিশালী একটা খাবার।

সবগুলো পদ একসাথে মুখে নিলে স্বাদে মন প্রাণ একেবারে ভরে যায়। বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কিশোয়ার যে সাহস নিয়ে মাস্টারশেফ অস্ট্রেলিয়ার মতো বড় আসরে পান্তা পরিবেশন করেছেন সেটা সত্যিই প্রশংসার দাবিদার। তিনি একেবারে চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন শেকড়ের সঙ্গে সম্পর্ক মানুষকে সবসময়ই বড় করে, মহান করে।

কিশোয়ার চৌধুরীর বাবা একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা, বাড়ি ঢাকার বিক্রমপুরে। মায়ের বাড়ি কলকাতার বর্ধমানে। অর্ধ-শতাব্দী আগে অস্ট্রেলিয়ায় পাড়ি জমান এ দম্পতি। সেখানেই জন্ম হয় কিশোয়ারের। বিদেশে বসবাস করলেও নিজ দেশের ভাষা, সংস্কৃতি চর্চা সবই বজায় রেখেছেন কিশোয়ারের বাবা-মা, আর সেটি ধারণ করতে সন্তানদেরও উৎসাহিত করেছেন।

মেলবোর্নের বাসিন্দা কিশোয়ার পেশায় ‘বিজনেস ডেভেলপার’ এবং পারিবারিক প্রিন্টিং ব্যবসার সঙ্গে জড়িত দীর্ঘদিন ধরে। রান্নায় হাতেখড়ি ছোটবেলায় বাবা-মায়ের হাত ধরে।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •