মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসীদের নিয়োগ দিলেই কঠোর ব্যবস্থা

মালয়েশিয়া প্রতিনিধি

মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশনে অবৈধ অভিবাসীদের ঢল

মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসীদের নিয়োগ দিলেই নিয়োগকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির উপ-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী (২) জেনাথন ইয়াসিন। শনিবার (১৭ জুলাই) এক বিবৃতিতে এ কথা জানান।

বিবৃতিতে বলা হয়, এ বছর এখন পর্যন্ত সাবাহ ইমিগ্রেশন বিভাগ ৬০১টি অভিযান পরিচালনা করেছে। অভিযানে অবৈধ অভিবাসীদের নিয়োগকর্তা হিসেবে ৩৪ জন অভিযুক্ত করা হয়েছে এবং এক হাজার ৬১ জন অভিবাসীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পাশাপাশি এক হাজার ৭৩৯ জনকে তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

অভিযানে অবৈধ অভিবাসীদের যারা নিয়োগ দেয় তাদের পাশাপাশি যেসব সিন্ডিকেট তাদের এ দেশে আনে তাদেরকেও টার্গেট করা হয়েছে বলে জানান জেনাথন ইয়াসিন।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, বিদ্যমান আইন ও বিধিমালার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে আপস ছাড়াই তাদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হবে।

এদিকে, দেশটির ইমিগ্রেশন বিভাগের উপ-সহকারী পরিচালক (এনফোর্সমেন্ট) রোমেল মোকোকো রোডলফো সম্প্রতি ৬৭ জন ইমিগ্রেশন অফিসার, ২৭ জন পিপলস ভলান্টিয়ার কর্পস (রেলা) এবং সিভিল ডিফেন্সের চারজন কর্মী নিয়ে একটি অভিযান পরিচালনা করেন। শনিবার থেকে শুরু হওয়া দুই দিনের অভিযানে ১৭৩ জন নিয়োগকর্তার মধ্যে ৬৫ জনকে সতর্ক করা হয়েছে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়।

পাসপোর্ট বা অন্যান্য বৈধ কাগজপত্র না থাকায় ইমিগ্রেশন অ্যাক্ট ১৯৫৯/৩-এর অধীনে বেশ কয়েকজন অবৈধ অভিবাসীকে আটক করা হয়েছে।
আটকদেরকে ডিটেনশন সেন্টারে পাঠানোর আগে তাদের করোনা পরীক্ষাসহ প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে বলে জানানো হয়।

এদিকে সাবাহে অবৈধ অভিবাসীদের সুরক্ষা না দেয়ার জন্য এবং অবিলম্বে কর্তৃপক্ষকে অবৈধ অভিবাসীদের তথ্য দিতে জনগণকে অনুরোধ করেছেন জেনাথন ইয়াসিন।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •