মেসি-ডি মারিয়ার নৈপুণ্যেও জিততে পারল না আর্জেন্টিনা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

মেসি
মেসি

প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচজুড়ে দারুণ খেললেন লিওনেল মেসি। সতীর্থদের বল বানিয়ে দিলেন গোলের উদ্দেশ্যে। এ ছাড়া বাঁদিক থেকে প্রতিপক্ষের রক্ষণে বেশ কয়েকবার ভীতি সৃষ্টি করেন আনহেল ডি মারিয়া। কিন্তু কিছুতেই কাজ হলো না। এ দুই কিংবদন্তির নৈপুণ্যও প্যারাগুয়ের বিপক্ষে জয়ের জন্য যথেষ্ট ছিল না।

অবশ্য এই ম্যাচে প্যারাগুয়ের গোলরক্ষক সিলভার কৃতিত্বকে খাটো করে দেখা যাবে না। দুর্দান্ত কয়েকটি সেভে জাল সুরক্ষিত রাখেন তিনি।

universel cardiac hospital

বাংলাদেশ সময় শুক্রবার ভোরে কাতার বিশ্বকাপ বাছাইয়ে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র করেছে আর্জেন্টিনা। এ নিয়ে চতুর্থ ম্যাচে পয়েন্ট হারাল মেসির দল। আর প্যারাগুয়ের এটি ষষ্ঠ ড্র।

প্রতিপক্ষের মাঠে দারুণ খেলেও এভাবে পয়েন্ট হারানোয় হতাশ আর্জেন্টিনা সমর্থকরা। পুরো ম্যাচে প্রায় ৭০ শতাংশ সময় বল দখলে রেখেছিলেন আলবিসেলেস্তেরা। গোলের উদ্দেশ্যে ১৪টি শট নেন তারা, যার আটটি ছিল লক্ষ্যে। একটিও জাল ছুঁতে পারল না। আর প্যারাগুয়ের ১০ শটের তিনটি ছিল লক্ষ্যে।

প্যারাগুয়ের মাঠে ম্যাচের প্রথম তিন মিনিটেই দুটি সুযোগ তৈরি করে আর্জেন্টিনা। চতুর্থ মিনিটে পাল্টা আক্রমণে দূরপাল্লার শট নেন সান্তিয়াগো আর্সামেন্দিয়া। তা ঝাঁপিয়ে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান আর্জেন্টিনা গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্টিনেজ।

দশম মিনিটে প্যারাগুয়ের রক্ষণ ভেঙে ফেলেন মেসি। তার চমৎকার এসিস্টে ডি-বক্সে বল পেয়ে কোনাকুনি শট নেন হোয়াকিন কোররেয়া। তা ঝাঁপিয়ে ফেরান প্যারাগুয়ে গোলরক্ষক সিলভা।

কিছুক্ষণ পরেই ফের মেসির নৈপুণ্যে ডি-বক্সে বল পান কোররেয়া। ইন্টার মিলানের এই মিডফিল্ডারের শট ফের ঠেকিয়ে দেন সিলভা। কিন্তু বল গ্রিপ করতে না পারায় সুযোগ আসে ডি মারিয়ার কাছে। তিনি চেষ্টা করলেও এক ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে বল চলে যায় বাইরে।

২৬তম মিনিটে মেসির ফ্রি-কিক অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এভাবেই প্রথমার্ধ শেষ হয়। দ্বিতীয়ার্ধ যেন প্রথমার্ধেরই প্রতিচ্ছবি। একই রকম আক্রমণাত্মক শুরু করে আর্জেন্টিনা। আবার সেই ডি-বক্সে গিয়ে ব্যর্থ হতে থাকে। অবশ্য পাল্টা-আক্রমণে ৫৪তম মিনিটে প্যারাগুয়ের মিগেল আলমিরোনের দুরূহ কোণ থেকে নেওয়া শট ঠেকিয়ে দেন মার্টিনেস।

এর চার মিনিট পর নিজেই হতাশ হন মেসি। ডি মারিয়ার ক্রসে মেসি দুর্দান্ত এক শট নেন। বল ক্রসবার ঘেঁষে ভেতরে ঢুকতে যাচ্ছিল। শেষ মুহূর্তে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান গোলরক্ষক সিলভা।

৮২ ও ৮৩তম মিনিটে আর্জেন্টিনার দুটি নিশ্চিত সুযোগ ব্যর্থ করে দেন গোলরক্ষক সিলভা। গিদো রদ্রিগেসের হেড ঝাঁপিয়ে ফেরানোর পর আলেহান্দ্রো গোমেসের জোরালো শটও ঠেকিয়ে দেন ৩৭ বছর বয়সি এই গোলরক্ষক।

৮৮তম মিনিটে ১০ গজ দূর থেকে প্যারাগুয়ের কার্লোস গনজালেস উড়িয়ে মারেন। রেফারির শেষ বাঁশিতে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে মাঠ ছাড়ে দুদল।
এ ফলের পর ৯ ম্যাচে পাঁচ জয় ও চার ড্রয়ে ১৯ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে আর্জেন্টিনা। ১০ ম্যাচে উরুগুয়ের পয়েন্ট ১৬ ও কলম্বিয়ার পয়েন্ট ১৪। তাদের সমান ১০ ম্যাচ খেলা প্যারাগুয়ের পয়েন্ট ১২। আর ৯ ম্যাচে ৯ জয় নিয়ে সবার ওপরে ব্রাজিল।

শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share