পাওনা টাকা চাওয়ায় খুন হন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা শহীদ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ছুরিকাঘাতে নিহত বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা আনোয়ার শহীদ

ধারের ১২ লাখ টাকা চাওয়ায় গম গবেষণা ইনস্টিটিউটের সাবেক মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা আনোয়ার শহীদকে রাস্তায় প্রকাশ্য ছুরি মেরে হত্যা করা হয় বলে জানিয়েছে র‌্যাব। এই ঘটনার প্রধান পরিকল্পকারী ছিলেন নিহত আনোয়ারের দীর্ঘদিনের পরিচিত জাকির হোসেন। হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ২ জন র‌্যাবের জালে ধরা পড়লে তাদের কাছ থেকে এমন তথ্য পায় এলিট ফোর্সটি।

গ্রেপ্তারদের ব্যাপারে বিস্তারিত জানাতে আজ সোমবার দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন ডাকা হয় র‌্যাবের পক্ষ থেকে। সেখানে এসব তথ্য জানান এলিট ফোর্সটির মুখপাত্র কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।

universel cardiac hospital

র‌্যাবের এই কর্মকর্তা জানান, দিনাজপুরে চাকরি করার সময় আনোয়ার শহীদের সঙ্গে জাকিরের সুসম্পর্ক গড়ে ওঠে। জাকিরের মাধ্যমেই সেখানে ২০ শতাংশ জমি কিনেছিলেন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা আনোয়ার। সেখানে ঘর তৈরি করে উপার্জিত অর্থ দিয়ে দুস্থদের সহযোগিতা করতেন, যা শুধু জাকিরই জানতো। এমনকী পরিবারের কেউই বিষয়টি জানতেন না। এছাড়া আনোয়ারের কাছ থেকে ১২ লাখ টাকা ধার নিয়েছিল জাকির। সেই টাকা ফেরত চাইলে পরিকল্পনা বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তাকে হত্যার পরিকল্পনা করা হয়। সেজন্য ভাড়াটে খুনি দিয়ে আনোয়ারকে খুন করা হয়।

হত্যাকাণ্ডের ঘটনার পর অভিযুক্তদের ধরতে অভিযানে নামে র‌্যাব। পরে রাজধানীর গাবতলী ও দিনাজপুরে পৃথক অভিযান চালিয়ে দুইজনকে গ্রেপ্তার করে এলিট ফোর্সটি। তারা হলেন- হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী জাকির হোসেন ও ছুরিকাঘাতে হত্যাকারী সাইফুল ইসলাম।

র‌্যাব জানায়, গ্রেপ্তার জাকির জমির দালালি ও ধানের ব্যবসা করেন। আনোয়ার যখন দিনাজপুরে চাকরি করতেন তখন জাকিরের মাধ্যমে জমি কিনেছিলেন। জীবনে যেখানেই চাকরি করেছেন সেখানেই স্থানীয় দুস্থদের সহযোগিতা করতেন আনোয়ার। সবশেষ তিনি দিনাজপুরে চাকরিরত অবস্থায় ২০ শতাংশ জমি কেনেন। সেই জমি ঘর করে দেন। সেখান থেকে যে অর্থ আসত তা গরিবদের বিলিয়ে দিতেন। কিন্তু পরিবারের কেউ এ বিষয়গুলো জানতেন না। কারণ তিনি ১৯৮২ সালে বিয়ে করার দুই মাসের মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটে। তিনি ঢাকায় বোনের বাসায় থাকতেন।

অনেকদিন আগে আনোয়ারের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা ধার নিয়েছিলেন জাকির। সেই ধারের টাকা পরিশোধ ও দিনাজপুর করা জমি ও বাড়ি নিজের নামে করতেই জাকির শহীদকে হত্যার পরিকল্পনা করে। দীর্ঘ একবছর চলছিল তাদের পরিকল্পনা।

পরিকল্পনা অনুযায়ী বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার পর আদাবর থানা এলাকার হলিলেন গলিতে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয় বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা আনোয়ারকে।

আনোয়ার শহীদের বাসা দক্ষিণপুরে রাজিয়া টাওয়ারে আর গ্রামের বাড়ি নীলফামারীর ডোমারের ছোট রাওতায়।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •