সরকার মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে: মোকতাদির চৌধুরী

নিজস্ব প্রতিবেদক

কেককাটা, শিক্ষার্থীদের মাঝে পরিবেশবান্ধব বৃক্ষ বিতরণসহ বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর জন্মদিন পালন করেছে জেলা ছাত্রলীগ।

বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) সকালে জেলা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার মোহাম্মদপুর উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে সুধী সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

universel cardiac hospital

এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন একটি বৈষম্যহীন সমাজ গঠন করতে। গ্রাম এবং শহরের পার্থক্য মুছে দিতে চেয়েছিলেন তিনি। এ জন্যে আমরা সবাই লড়াই-সংগ্রামের জন্যে উদ্বুদ্ধ হয়েছিলাম। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর সেই দেশটা আমরা গড়ে তুলতে পারিনি। বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডের পরে যখন আমরা রাজপথে নামার চেষ্টা করেছি তখন আমাদেরকে বিভিন্নভাবে নিরুৎসাহিত করার চেষ্টা করা হয়েছে। তারপরেও আমরা টিকে ছিলাম।

তিনি বলেন, জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনা ১৯৯৬ সালে ক্ষতায় আসার পর থেকে আমরা মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছি। শেখ হাসিনা কখনো মনে করেননি যে, তিনি শাসন-শোষণ করার জন্য ক্ষমতায় এসেছেন। তিনি মনে করেন, মানুষের সেবা করাই তার কাজ। যতদিন বেঁচে থাকব ‘মানুষ মানুষের জন্য’ বেঁচে থাকব- এ শিক্ষাটা আমরা ওনার কাছ থেকে শিখেছি। আমরা এখন বৈষম্যহীন সমাজ গঠন করার চেষ্টা করছি। সভায় তিনি মোহাম্মদপুর এলাকার রাস্তাঘাট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান উন্নয়নের আশ্বাস দেন।

অনুষ্ঠানে তিনি শিক্ষার্থীদের মাঝে একহাজার পরিবেশ বান্ধব গাছের চারা বিতরণ করেন। পরে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল এবং শাহদাৎ হোসেন শোভনকে সঙ্গে নিয়ে জন্মদিনের কেক কাটেন উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এইচ মাহাবুব আলম, রামরাইল ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান শাহাদাৎ হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাসুম বিল্লাহসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন