মরদেহ সৎকারে হিমশিম খাচ্ছে চীনের শ্মশানগুলো

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

করোনা ভাইরাসের নতুন ধরন
ফাইল ছবি

চীনে হু হু করে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ। বাড়ছে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা। ফলে একদিকে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দিতে যেমন চাপ বেড়েছে চীনের হাসপাতালগুলোর ওপর, তেমনি মরদেহ সৎকার করতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছে শ্মশানগুলো। খবর এএফপির।

চীনের বেইজিং, চংকিং ও গুয়াংঝৌ শহরের শ্মশানগুলোতে আজ মঙ্গলবার সারি সারি মরদেহ দেখা গেছে। শ্মশানগুলোর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সাধারণ সময়ের চেয়ে তারা এখন অনেক ব্যস্ত সময় পার করছে। এমনকি একটি শ্মশান কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তাদের কাছে মরদেহ রাখার জায়গাও শেষ হয়ে আসছে।

universel cardiac hospital

তবে এসব মরদেহ করোনা রোগীদের কি না, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। কারণ, করোনার কারণেই মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে কি না, এমন প্রশ্ন সরাসরি এড়িয়ে গেছেন শ্মশানে কাজ করা লোকজন। এদিকে আজ নতুন করে করোনায় পাঁচজনের মৃত্যুর খবর জানিয়েছে চীন সরকার। সরকারি ভাষ্যমতে, আগের দিন সোমবার মারা গিয়েছিলেন আরও দুজন। দুদিনে মারা যাওয়া সাতজনই বেইজিংয়ের বাসিন্দা ছিলেন।

২০১৯ সালে চীনের উহান শহরে প্রথম করোনা শনাক্তের পর এখন পর্যন্ত চীনে মোট ৫ হাজার ২৪২ জনের মৃত্যুর তথ্য দিয়েছে দেশটির সরকার। বিশ্বের সবচেয়ে বেশি জনসংখ্যার দেশ হওয়া সত্ত্বেও চীনে করোনায় এই মৃত্যু অন্যান্য দেশের তুলনায় বহু কম।

চীনে চলতি মাসে তুমুল বিক্ষোভের মুখে শহরগুলো থেকে করোনার কঠোর বিধিনিষেধ তুলে নেয় সরকার। এর পর থেকেই হাসপাতালগুলোতে রোগীর সংখ্যা বাড়তে দেখা গেছে। চাহিদা মেটাতে পারছে না ওষুধের দোকানগুলো। স্বাস্থ্যবিশেষজ্ঞদের অনেকেই বলছেন, আগামী কয়েক মাসে চীনের মোট জনসংখ্যার ৬০ শতাংশ করোনায় আক্রান্ত হতে পারে। আর মৃত্যু হতে পারে ২০ লাখের বেশি মানুষের।

শেয়ার করুন