কনসার্ট হলে হামলা চালিয়েছে ‘কট্টর ইসলামপন্থিরা’, ইউক্রেনও জড়িত: পুতিন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

রাশিয়ার রাজধানী মস্কোর কনসার্ট হলে হামলার পেছনে ‘কট্টর ইসলামপন্থিরা’ ছিল বলে প্রথমবারের মতো স্বীকার করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তবে ইউক্রেনও কোনো না কোনোভাবে এই হামলায় জড়িত ছিল বলেই দাবি করেন তিনি। খবর আল-জাজিরার।

গত শুক্রবার রাতে ক্রোকাস সিটি হল কনসার্ট সেন্টারে কনসার্ট দেখতে জড়ো হওয়া মানুষদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় একদল বন্দুকধারী। এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৩৭ জন নিহত হয়েছেন। পাশাপাশি আহত হয়েছেন প্রায় দেড়শো মানুষ। ঘটনায় ১১ জনকে আটক করেছে রাশিয়ার ফেডারেল সিকিউরিটি সার্ভিস (এফএসবি)। আটককৃতদের মধ্যে চারজন সরাসরি হামলায় জড়িত রয়েছে বলে দাবি এফএসবির।

universel cardiac hospital

সোমবার টেলিভিশনে প্রচারিত এক বৈঠকে প্রেসিডেন্ট পুতিন বলেন, ‘আমরা জানি, অপরাধটি কট্টরপন্থি ইসলামপন্থিদের হাতেই সংঘটিত হয়েছে, যাদের আদর্শের বিরুদ্ধে ইসলামিক বিশ্ব নিজেরাই বহু শতাব্দী ধরে লড়াই করে আসছে।’

এসময় ইউক্রেনের কথা উল্লেখ করে পুতিন বলেন, ‘এই নৃশংসতার সঙ্গে হয়তো তাদের একটি যোগসূত্র থাকতে পারে, যারা ২০১৪ সাল থেকে নব্য-নাৎসি কিয়েভ শাসনের সাহায্যে আমাদের দেশের সঙ্গে যুদ্ধ করে আসছে।’

পুতিন প্রশ্ন করেন, ‘অবশ্যই, এই প্রশ্নের উত্তর পাওয়া দরকার, কেন অপরাধ করার পরে সন্ত্রাসীরা ইউক্রেনে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিল? সেখানে তাদের জন্য কে অপেক্ষা করছিল?’

পুতিন অবশ্য তার বক্তব্যে স্কোতে হামলার দায় স্বীকার করা আইএসআইএল (আইএসআইএস) এর সহযোগীদের কথা উল্লেখ করেননি।

আইএসআইএল এর সহযোগী আইএস-কে এই হামলার দায় স্বীকার করার পর যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দারাও তাদের সেই দাবি সমর্থন করে। পরে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁও বলেছেন, ফ্রান্সের কাছে যে গোয়েন্দা তথ্য রয়েছে যাতে দেখা যাচ্ছে, ‘আইএসআইএলের একটি অংশ’ এই হামলার জন্য দায়ী।’

এর আগে সোমবার ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ হামলার জন্য কাউকে দোষ দিতে অস্বীকার করেন এবং রাশিয়ায় তদন্তের ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করার জন্য সাংবাদিকদের প্রতি আহ্বান জানান।

এছাড়া যুক্তরাষ্ট্র গত ৭ মার্চ মস্কোর কর্তৃপক্ষকে সম্ভাব্য হামলার বিষয়ে সতর্ক করেছিল বলে যে খবর বের হয়েছে সে বিষয়েও দিমিত্রি পেসকভ মন্তব্য করতে রাজি হননি। এই ধরনের যে কোনো গোয়েন্দা তথ্য গোপনীয় বলেও জানান তিনি।

এদিকে পুতিন যেমন বলেছেন যে এই হামলার পেছনে যারা রয়েছে তাদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে। ঠিক তেমনিই ব্যবস্থাগ্রহণ করা হচ্ছে।

রোববার মস্কোর বাসমানি ডিস্ট্রিক্ট আদালতে গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে চারজনের হাজির করা হয়। এরমধ্যে মধ্যে তিনজনকে চোখ বেঁধে হাজির করা হয়। অন্যজনকে আনা হয় হুইল চেয়ারে। তাদের সবার বিরুদ্ধে আনা হয় সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড সংঘটনের অভিযোগ।

আদালতে হাজির করা চারজন হলেন- দালের্দজন মিরজোয়েভ, সাইদআক্রামি মুরোদালি রাচাবালিজোদা, শামসিদিন ফারিদুনি ও মুহাম্মাদসোবির ফায়জভ। তাদের মধ্যে মিরজোয়েভ ও রাচাবালিজোদা হামলায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। এদের মধ্যে মিরজোয়েভ তাজিকিস্তানের নাগরিক।

রুশ সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত এক ভিডিওতে দেখা যায়, আদালতে গ্রেপ্তার চার ব্যক্তির মধ্যে তিনজনকে চোখ বেঁধে হাজির করে মুখোশ পরা পুলিশ। তিনজনকেই আহত অবস্থায় দেখা যায়। এরমধ্যে মিরজোয়েভ ও রাচাবালিজোদার চোখে কালো দাগ ছিল। রাচাবালিজোদার কান ছিল ভারী ব্যান্ডেজে মোড়া। আর ফারিদুনির মুখ ছিল বেশ খানিকটা ফোলা এবং হুইলচেয়ারে করে আনা ফায়জভের একটি চোখ নষ্ট হয়ে গেছে বলে মনে হচ্ছে।

শেয়ার করুন