বারাক ওবামার বন্ধু ডেভিড ল্যামি এখন যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মত ও পথ ডেস্ক

লেবার পার্টির নিরঙ্কুশ জয়ের পর যুক্তরাজ্যের নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন ডেভিড ল্যামি। নতুন মন্ত্রিসভার সদস্য হিসেবে শুক্রবার তার নাম ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী কিয়ার স্টারমার। কৃষ্ণাঙ্গ এই লেবার নেতার আরেকটি পরিচয় রয়েছে, তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার বন্ধু।

৫১ বছর বয়সী ডেভিড ল্যামির পূর্বপুরুষ লাতিন আমেরিকার গায়ানায় ক্রীতদাস ছিলেন। সেই পরিবার থেকেই যুক্তরাজ্যের নীতিনির্ধারকদের একজন হয়ে উঠেছেন তিনি। সম্প্রতি এক ভাষণে ল্যামি বলেছিলেন, ‘দাস ব্যবসার শিকার পরিবারের উত্তরসূরি হিসেবে আমি প্রথম যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হতে যাচ্ছি। এ দায়িত্ব গুরুত্বের সঙ্গে পালন করব।’ খবর এএফপির।

universel cardiac hospital

ডেভিড ল্যামি দুই বছরের বেশি সময় ধরে লেবার পার্টির আন্তর্জাতিক বিষয়সংক্রান্ত মুখপাত্র হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। এ সময়ে ৪০ বারের বেশি বিদেশ সফর করেছেন বলে দাবি তার। যুক্তরাজ্যের কূটনীতির জন্য একটি মডেলও দাঁড় করিয়েছেন এই লেবার নেতা। এর নাম দিয়েছেন ‘প্রগতিশীল বাস্তববাদ’।

লেবার পার্টির খ্যাতনামা পররাষ্ট্রমন্ত্রী আর্নেস্ট বেভিনের বাস্তবভিত্তিক নীতির সঙ্গে আরেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী রবিন কুকের নৈতিক আদর্শবাদকে মিলিয়ে এই মডেল তৈরি করেছেন ল্যামি। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর সামরিক জোট ন্যাটো গঠনে ভূমিকা রেখেছিলেন বেভিন। যুক্তরাজ্যকে পারমাণবিক শক্তিধর হওয়ার পথেও এগিয়ে নিয়েছিলেন তিনি। আর কসোভো ও সিয়েরা লিওনে ব্রিটিশ বাহিনীর অভিযান সফলভাবে দেখভাল করেছিলেন রবিন কুক।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের সহযোগিতামূলক সম্পর্ক গভীর করার পক্ষে ডেভিড ল্যামি। ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্য বেরিয়ে আসার পর এর সমালোচনাও করেছিলেন তিনি। এ ছাড়া রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধে তিনি বরাবরই ইউক্রেনকে সমর্থন দিয়েছেন। মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠা হলে ফিলিস্তিন রাষ্ট্রও চান তিনি।

শেয়ার করুন