বিধি মেনে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করার আহ্বান জানালেন গণপূর্তমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

শোভন

প্রচলিত আইন ও বিধিবিধান মেনে সরকারি কর্মকর্তা ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করার জন্য সদ্য নির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানশোভন ও ভাইস চেয়ারম্যানদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি।

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে নির্বাচিত চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানদের দায়িত্বগ্রহণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান।

universel cardiac hospital

মন্ত্রী বলেন, কোনো পরামর্শ বা উপদেশ নয়, প্রচলিত আইন ও বিধিবিধান মেনে কাজ করবেন। সরকারি কর্মকর্তা ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করবেন। যারা ভোট দিয়ে আপনাদের নির্বাচিত করেছেন তাদের প্রতি দায়বদ্ধতার কথা চিন্তা করে কাজ করবেন। নিয়ম মেনে যতক্ষণ কাজ করবেন ততক্ষণ আমাকে পাশে পাবেন। অন্যথায় আমি আপনাদের সাথে নেই।

তিনি বলেন, সরকারের টাকা জনকল্যাণে ব্যয় করবেন। অনর্থক অর্থ ব্যয় করা থেকে বিরত থাকতে হবে। নিজের টাকা যেভাবে হিসেব করে ব্যয় করেন সরকারি টাকা সেভাবে হিসেব করে ব্যয় করার জন্য সরকারি নির্দেশনা রযেছে, সে নির্দেশনা যথাযথভাবে মেনে চলবেন। এমন কোনো কাজ করবেন না যা জনসাধারণের মাঝে বিরুপ মনোভাব সৃষ্টি করে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরকে ছিনতাই, চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাসমুক্ত রাখতে সবার সহযোগিতা কামনা করেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সেলিম শেখ এর সভাপতিত্বে আয়োজিত এ দায়িত্বগ্রহণ অনুষ্ঠানে বিদায়ী চেয়ারম্যান এডভোকেট লোকমান হোসেন, নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান শাহাদত হোসেন শোভন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মাহাবুবুল বারী চৌধুরী মন্টু, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এবং গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে মন্ত্রী শহরের বঙ্গবন্ধু স্কয়ারে বনবিভাগ ও জেলা প্রশাসনের যৌথ আয়োজনে সপ্তাহব্যাপী (৯-১৮ জুলাই) বৃক্ষ মেলার উদ্বোধন করেন।

মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোকতাদির চৌধুরী বলেন, পৃথিবীকে বসবাসযোগ্য ও স্থিতিশীল রাখতে পর্যাপ্তসংখ্যক বৃক্ষরোপণের বিকল্প নেই।

তিনি আরও বলেন, একটি বসবাসযোগ্য শহরের জন্য মোট আয়তনের কমপক্ষে ২৫ শতাংশ বনভূমি থাকা প্রয়োজন। নির্বিচারে গাছ কাটা, অপরিকল্পিত নগরায়ন ও শিল্পায়নের ফলে এদেশের বনভূমির পরিমান ৫/৬ শতাংশে নেমে এসেছিলো। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত ও নানামুখী তৎপরতায় দেশে বৃক্ষরোপণের হার বৃদ্ধি পেয়েছে এবং বনভূমির পরিমান মোট আয়তনের ১৩/১৪ শতাংশে এসেছে। এটা কাঙ্খিত পর্যায়ে পৌঁছাতে আমাদের আরো অনেক গাছ লাগাতে হবে। বিনা প্রয়োজনে গাছ কাটা বন্ধ করতে হবে। একটা গাছ কাটলে অন্তত তিনটা গাছ লাগাতে হবে।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে আয়োজিত এ উদ্বোধনীঅনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পৌর মেয়র মিসেস নায়ার কবির, পুলিশ সুপার মো: শাখাওয়াত হোসেন, বিভাগীয় বন কর্মকর্তা জি এম মাহমুদ কবির ও সিভিল সার্জন ডা. মো: বেলায়েত হোসেন।
মেলায় জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে আগত চল্লিশটিরও বেশী স্টল অংশগ্রহণ করেছে।

শেয়ার করুন