মোহাম্মদপুরে পুলিশের ওপর হামলার দায়ে ৭ বিহারি আটক

মহানগর প্রতিবেদক

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে পুলিশের ওপর হামলা ও গাড়ি ভাঙচুরের দায়ে জেনেভা ক্যাম্পের ভেতর থেকে ৭ উর্দুভাষীকে আটক করেছে পুলিশ।

আজ শনিবার বিহারি ক্যাম্পের সামনে থেকে গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন তেজগাঁও বিভাগের ডিসি আনিসুর রহমান।

আনিসুর রহমান বলেন, সকাল থেকে ছয় দফা পুলিশের ওপর হামলা, পুলিশের গাড়ি ভাঙচুরের দায়ে ক্যাম্পের ভেতরে তল্লাশি করে সাত বিহারী যুবককে আটক করা হয়েছে।

এর আগে মোহাম্মদপুর জেনেভা ক্যাম্পে লোড শেডিং বন্ধের দাবিতে সড়কে অবস্থান নেওয়া উর্দুভাষীদের সঙ্গে পুলিশের দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত অর্ধশতাধিক উর্দুভাষী আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। শনিবার দুপুর ১টা নাগাদ এই সংঘর্ষের সূচনা হয়।

গত এক মাসের বেশি সময় ধরে জেনেভা ক্যাম্পে প্রতিদিন ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা বিদ্যুৎ বিভ্রাট হয়ে আসছিল। শনিবার দুপুর বারোটায় আবারও বিদ্যুৎ বিভ্রাট ঘটলে সড়কে অবস্থান নেন ক্যাম্পের অধিবাসীরা।

এ সময় স্থানীয় ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের জনপ্রতিনিধি হাবিবুর রহমান মিজান ঘটনাস্থলে এসে আন্দোলনকারীদের সাথে কথা বলার চেষ্টা করলে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

এরপর বেলা একটা নাগাদ সড়ক থেকে আন্দোলনকারীদের তুলে দিতে লাঠিচার্জ ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পুলিশ। পাশাপাশি কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ছোড়া হয়েছে বলে জানিয়েছে আন্দোলনকারীরা।

এতে উর্দুভাষীদের অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হয়েছে বলে দাবি করছেন আন্দোলনকারীরা।

জানা গেছে, জাতিসংঘের জেনেভা কনভেনশনের মাধ্যমে বাংলাদেশের দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে জেনেভা ক্যাম্পের বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করে আসছিল। কিন্তু গতবছর মাঝামাঝি থেকে সেই বিল পরিশোধ করা হয়নি। চলতি বছর জুলাই পর্যন্ত ২৪ কোটি ৬০ লাখ টাকার বিদ্যুৎ বিল বকেয়া পড়ে যায়।

ফলে বিভিন্ন সময়ে বিদ্যুৎ বিপণন সংস্থা ডিপিডিসি জেনেভা ক্যাম্পের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে। স্থানীয় ক্ষমতাসীনদের মাধ্যমে বিভিন্ন সময় বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হলেও গত এক মাসেরও বেশি সময় ধরে দিনে ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা বিদ্যুৎ পাচ্ছিলেন না এই ক্যাম্পের অধিবাসীরা।

গত এক মাসেরও বেশি সময় ধরে সরকারের বিভিন্ন মহলের কড়া নেড়েও কোনো সুরাহা পাননি বলে ক্যাম্পবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে।

ফলে শনিবার বেলা ১২টা বিদ্যুৎ বিভ্রাট হলে সম্মিলিতভাবে ক্যাম্পের সামনের শাহজাহান রোড ও গজনবী রোডে অবস্থান নেন উর্দুভাষীরা।

এ বিষয়ে জেনেভা ক্যাম্পের সাধারণ সম্পাদক শওকত আলী গণমাধ্যমকে বলেন, তারা এক মাসের বেশি সময় ধরে প্রতিদিন ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা বিদ্যুৎ বিভ্রাট হয়। প্রতিদিনের মতো আজ দুপুর ১২ টায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হলে ক্যাম্পের অধিবাসীরা রাস্তায় নেমে আসে। সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেলে জনপ্রতিনিধি হাবিবুর রহমান মিজান ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। সেখানে আন্দোলনকারীদের সাথে তার বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

এ সময় পুলিশ আন্দোলনকারীদের ওপর টিয়ারশেল, রাবার বুলেট এবং লাঠিচার্জ করলে অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হয়েছে বলে তিনি জানান।

সংঘর্ষ চলাকালীন আন্দোলনকারীরা শাহজাহান রোডের পাশে তাজমহল রোডে মোহাম্মদপুর থানা পুলিশের একটি গাড়িতে ভাঙচুর ও আগুন লাগিয়ে দেয়।

শেয়ার করুন
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    3
    Shares

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে