ছু‌টির দিনে গ্রন্থমেলায় প্রবেশে দীর্ঘ লাইন, আনন্দে মেতেছে শিশুরা

মত ও পথ প্রতিবেদক

অমর একুশে গ্রন্থমেলা
অমর একুশে গ্রন্থমেলা।

শুক্রবার ছু‌টির দিনে আজ অমর একুশে গ্রন্থমেলা শুরু হ‌য়ে‌ছে সকাল ১১টা থে‌কে। তবে ১১টার আগেই মেলায় প্রবে‌শের জন্য দীর্ঘ লাইন ছিল। অন্যদিনের তুলনায় ভিড় যেন আজ বেশিই দেখা গেলো।

যাত্রাবাড়ি থেকে আসা মারেফত হাসান জানালেন, ব্যস্ততার কারণে মেলায় আসা হয় না তার, তাই বন্ধের দিনে একটু আগেভাগেই এসেছেন পুরো মেলা ঘুরে দেখার জন্য, খুঁজে খুঁজে তার পছন্দের বই কেনার জন্য।

গ্রন্থমেলায় পাঠকদের এমন ভিড় লেখকদের নতুন কিছু লেখার জন্য উৎসাহিত করে বলে জানান এক তরুণ লেখক।

এদিকে বসন্ত ও ভা‌লোবাসা দিবস উপলক্ষে মেলায় ভিড় বে‌ড়েই চ‌লে‌ছে। বাস‌ন্তী র‌ঙের পোশাক প‌রে মেলায় বইপ্রেমীরা আসছেন। ঘু‌রে ফিরে দেখছেন প্রিয় লেখ‌কের বই।

আবৃত্তির চূড়ান্ত লড়াইয়ে ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা

সঠিক উচ্চারণে মাতৃভাষায় মনের ভাব প্রকাশের অভ্যাস শিশু বয়স থেকেই গড়ে তোলার জন্য শিশু-কিশোরদের আবৃত্তির প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে গ্রন্থমেলায়।

শুক্রবার সকালে গ্রন্থমেলা উপলক্ষে বাংলা একাডেমির মূল মঞ্চে শিশু-কিশোর আবৃত্তি প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত নির্বাচনের আয়োজন করা হয়। এর উদ্বোধন করেন স্বাধীনতা পুরস্কারপ্রাপ্ত আশরাফুল আলম।

‘ক’ শাখার ১০ বছর বয়সী এবং ‘খ’ শাখার সর্বোচ্চ ১৫ বছর বয়সীদের নিয়ে শিশু-কিশোর আবৃত্তি প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত নির্বাচনের আহ্বায়ক ছিলেন শাহাদাত হোসেন।

এর আগে দুই গ্রুপ থেকে ১০ জন করে প্রাথমিকভাবে নির্বাচন করা হয়েছিল। আজ চূড়ান্ত প্রতিযোগী হিসেবে দুই গ্রুপ থেকে তিন জন করে নির্বাচন করা হবে।

বিচারকমণ্ডলীর দায়িত্বে আছেন আবৃত্তিশিল্পী ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায়,  ড. রুপা চক্রবর্তী, বেলায়েত হোসেন। আর আহ্বায়ক হিসেবে আছেন শাহাদাত হোসেন নিপু।

আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেবেন সাবেক সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর।

উচ্ছ্বল আনন্দে মেতেছে শিশুরা

এ বছরের গ্রন্থমেলার তৃতীয় শিশুপ্রহরে হৈ হুল্লোড় আর উচ্ছল আনন্দে ভাসছে শিশুরা।  মেলায় ঢুকলেই চোখে পড়ছে তাদের বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস। উচ্ছ্বল আনন্দে ভরপুর শিশুরা মাতিয়ে রাখছে মেলা প্রাঙ্গণ। শুধুই শিশুদের কলকাকলিতে মুখর গ্রন্থমেলা । তবে শুধু আনন্দ করাই নয়, বইও কিনছে এই খুদেরা। তাদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে রূপকথার গল্প, ছড়া এবং কার্টুনের বই।

প্রিয় সিসিমপুরের চরিত্রগুলোর সঙ্গে আজ বাস্তবে দেখা মিলবে তিনবার! প্রথম পর্বে সাড়ে ১১টায়, দ্বিতীয় পর্বে সাড়ে তিনটায় ও তৃতীয় পর্বে সাড়ে ছয়টায়।

উল্লেখ্য, প্রতি শুক্র ও শনিবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চলে শিশুপ্রহর।

শেয়ার করুন
  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    2
    Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here