পদ্মা সেতুতে বসল ২৯তম স্প্যান, দৃশ্যমান ৪৩৫০ মিটার

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যেও এগিয়ে চলছে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ। এরই ধারবাহিতকায় আজ সোমবার সকাল ১০টা ৪৫মিনিটে সেতুর মুন্সীগঞ্জ প্রান্তে ১৯ ও ২০নং পিয়ারে বসানো হয়েছে ২৯তম স্প্যান। এর ফলে দৃশ্যমান হলো সেতুর ৪৩৫০ মিটার অংশ। ২৮তম স্প্যান বসানোর ২৩ দিনের মাথায় ২৯তম স্প্যানটি বসানো হলো।

পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের মত ও পথকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, রবিবার সকালে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া কুমারভোগ কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ‘তিয়ান-ই’ ভাসমান ক্রেনে স্প্যানটি নির্ধারিত দুটি পিয়ারের কাছে নোঙর করে রাখা হয়েছিল। আবহাওয়া অনুকূল থাকায় সোমবার নির্ধারিত সময় সকাল ৮টায় স্প্যানটি বসানোর কার্যক্রম শুরু হয়। প্রকৌশলী ও নির্মাণ শ্রমিকদের প্রচেষ্টায় সকাল ১০টা ৪৫মিনিট স্প্যান বসানোর কাজ শেষ হয়। অর্থাৎ ২৯তম স্প্যানটি বসাতে সময় লাগে ২ঘন্টা ৪৫ মিনিট।

আব্দুল কাদের আরও জানান, এখন পর্যন্ত মাওয়া প্রান্তে ২০টি স্প্যানের মধ্যে ১০টি, মাঝের স্প্যান একটি ও জাজিরা প্রান্তে ২০টি স্প্যানের মধ্যে ১৮টি স্থাপন করা হয়েছে। অর্থাৎ মোট ২৯টি স্প্যান স্থাপন করা হয়েছে। সেতুর জন্য প্রয়োজন ৪১টি স্প্যান। তার মধ্যে মাওয়া এসেছে ৩৯টি।

যার মধ্যে ২৯টি স্থাপন করা হয়েছে এবং ১০টি মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে ওয়েল্ডিং, অ্যসেম্বলি ও পেইন্টিং এর কাজ চলছে। বাকি ০২টি স্প্যানসহ ২৩০টি নোড/কর্ড অংশ এরই মধ্যে চীন হতে মংলা বন্দরে পৌঁছেছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে মাওয়া পৌঁছে যাবে আশা করা যায়।

২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মাসেতুর নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর খুঁটিতে প্রথম স্প্যানটি বসানোর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হয় পদ্মা সেতু। এরপর একে একে বসানো হলো ২৯টি স্প্যান। প্রতিটি স্পেনের দৈর্ঘ্য ১৫০ মিটার। ৪২টি পিলারের ওপর ৪১টি স্প্যান বসিয়ে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা সেতু নির্মাণ করা হবে। এর মধ্যে সবকটি পিলার এরই মধ্যে দৃশ্যমান হয়েছে।

মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি (এমবিইসি) ও নদীশাসনের কাজ করছে দেশটির আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন। দুটি সংযোগ সড়ক ও অবকাঠামো নির্মাণ করেছে বাংলাদেশের আবদুল মোমেন লিমিটেড। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো। পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ হওয়ার পর আগামী ২০২১ সালেই খুলে দেয়া হবে।

শেয়ার করুন
  • 9
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    9
    Shares

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে