রূপ বদলে চীনে ফিরেছে করোনা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

চীনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে ফের ছড়াচ্ছে করোনা। আশঙ্কা করা হচ্ছে, গত কয়েক মাসে করোনার গঠন বদলে গিয়েছে। আগে দু’সপ্তাহের মধ্যে কোনো ব্যক্তির শরীরে ওই রোগের লক্ষণ প্রকাশ পেত। এখন কোভিড-১৯ রোগের লক্ষণ প্রকাশ পেতে সময় লাগছে আগের চেয়ে বেশি। তার মধ্যে আক্রান্ত ব্যক্তির মাধ্যমে সংক্রামিত হচ্ছেন আরও অনেকে।

চীনের যে দু’টি প্রদেশে নতুন করে করোনার সংক্রমণ দেখা দিয়েছে, তাদের নাম জিলিন আর হেইলংজিয়াং।

চীনের প্রথম সারির মহামারি বিশেষজ্ঞ কিউ হাইবো বলেন, নতুন করে যারা করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন, তাদের দেহে রোগের লক্ষণ প্রকাশ পেতে সময় লাগছে দুই সপ্তাহের বেশি। আগে এক থেকে দুই সপ্তাহ অবজারভেশনে রাখলেই বোঝা যেত, কোনো ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন কিনা। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে, দু’সপ্তাহ পরেও অনেকের শরীরে করোনা নেগেটিভ এসেছে। কিন্তু পরে তাদের শরীরে ফুটে উঠেছে রোগের লক্ষণ। খবর দ্য ওয়ালের।

কিউয়ের কথায়, ‘কারও দেহে করোনা সংক্রমণ হয়েছে কিনা বুঝতে যদি দেরি হয়, তাহলে তার পরিবারের মধ্যে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।’

কয়েকমাস আগে উহানে মহামারির মোকাবিলায় গিয়েছিলেন কিউ। তিনি জানান, দেশের উত্তর-পূর্বে শুলান, জিলিন সিটি আর শেংইয়াং-এ গত দু’সপ্তাহে নতুন করে করোনা সংক্রমণ দেখা দিয়েছে। অসুস্থ হয়ে পড়েছেন অন্তত ৪৬ জন। পুরো এলাকা লকডাউন করে দেওয়া হয়েছে। ওই অঞ্চলে ১০ কোটি মানুষ বাস করেন।

বিজ্ঞানীরা মনে করেন, করোনার লক্ষণ প্রকাশ পেতে দেরি হওয়ার পিছনে দু’টি কারণ থাকতে পারে। সম্ভবত করোনা ভাইরাসের গঠনে উল্লেখযোগ্য বদল ঘটেছে। নয়তো রোগীদের এখন পর্যবেক্ষণে রাখা হচ্ছে অনেক আগে থেকে।

শেয়ার করুন
  • 11
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    11
    Shares

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে