চির নিদ্রায় শায়িত হলেন চৌধুরী মো. আফজাল হোসেন নিসার

মোহাম্মদ সজিবুল হুদা

বাংলাদেশ সমবায় ব্যাংক লিমিটেডের কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক চৌধুরী মো. আফজাল হোসেন নিসারের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। আজ শনিবার সকাল ১১টার দিকে তাঁর নিজ গ্রাম চিনাইরে পারিবারিক কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয় তাকে। করোনা পজিটিভ হওয়ায় স্বাস্থ্যবিধি মেনেই সম্পন্ন হয় আনুষ্ঠানিকতা।

তাঁর জানাজায় উপস্থিত ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি, আশুগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ হানিফ মুন্সী, সরাইল উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ রফিক ঠাকুর, জেলা পরিষদের সদস্য বাবুল মিয়া, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট লোকমান হোসেনসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মী।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী।

এদিকে চৌধুরী মো. আফজাল হোসেন নিসারের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর-৩ আসনের সংসদ সদস্য যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল-মামুন সরকার। এছাড়াও তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগ, আওয়ামী যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ, চিনাইর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব অনার্স কলেজ শিক্ষক পরিষদসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন।

উল্লেখ্য, গতকাল ১৭ জুলাই রাত ৮টা ২০ মিনিটে চৌধুরী মো. আফজাল হোসেন নিসার অন্তিম নিশ্বাস ত্যাগ করেছেন ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৭ বছর। তিনি স্ত্রী, তিন ছেলে ও তিন মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

চৌধুরী মো. আফজাল হোসেন নিসারের ছেলে তানভীর চৌধুরী জানান, গত ২ জুলাই প্রথমবার তার বাবার করোনাভাইরাস পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ আসে। পরে ৭ জুলাই দ্বিতীয়বারের পরীক্ষায় পজিটিভ রিপোর্ট আসে। ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে তার চিকিৎসা চলছিল। সেখানেই শুক্রবার রাতে তার বাবা মারা গেছেন।

চৌধুরী মো. আফজাল হোসেন নিসার ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন। তার বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার মাছিহাতা ইউনিয়নের চিনাইর গ্রামে। তবে পরিবার নিয়ে তিনি জেলা শহরের বণিকপাড়ায় থাকতেন। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর একনিষ্ঠ রাজনৈতিক সহকর্মী ছিলেন। একজন সমাজকর্মী হিসেবে তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা এবং বিজয়নগর উপজেলায় যথেষ্ট অবদান রেখে গেছেন।

শেয়ার করুন
  • 1.2K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1.2K
    Shares

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে