হাটে পশুর চেয়ে ক্রেতার সংখ্যা বেশি

মহামারি করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে গোটা রাজধানীতেই পশুর হাট কম বসেছে। গত কয়েকদিন হাটে ক্রেতার উপস্থিতি সেভাবে জমজমাট ছিল না। কিন্তু আজ শুক্রবার সকাল থেকে পাল্টে গেছে পরিস্থিতি। রাজধানীর কোরবানির হাটগুলোতে ক্রেতাদের ভিড় লক্ষণীয়। হাটে এখন পশু কম, কিন্তু সে তুলনায় কোরবানি দিতে ইচ্ছুক ক্রেতার সংখ্যা বেশি। তাই সময় গড়ানোর সঙ্গে হাটে পশুর দামও উঠানামা করছে।

বিশেষ করে আজ সকালের পর সব হাটগুলোতেই কোরবানির পশুর দাম বেশ চড়া লক্ষ করা গেছে। বিক্রেতারা পরিস্থিতি বুঝে পশুর দামও বেশি বেশি হাঁকছেন।

করোনা সংক্রমণের কারণে আর্থিক মন্দা দেখা দেওয়ায় কারণে গত বছরের তুলনায় এ বছর হাটে পশুর সংখ্যা কম। দাম পাবেন না মনে করে অনেক পশু বিক্রেতাই হাটে আসেননি। এছাড়া করোনা পরিস্থিতির কারণে অনেকেই কোরবানি দেয়া নিয়েও দোলাচলে ছিলেন।

করোনার কারণে গরু কম বিক্রি হবে-এমনটা মনে করে পাইকাররাও হাটে পশু এনেছেন কম। যে পাইকার প্রতিবার ১০টি করে গরু আনতেন তিনি এনেছেন ৫টা। শেষ মুহূর্তে বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ক্রেতার চাহিদার চেয়েও বাজারে পশু কম। কোরবানির শেষ প্রস্তুতি হিসেবে রাজধানীর সবচেয়ে বড় পশুর হাটগুলোতে পছন্দের পশু কিনতে ক্রেতারা ভিড় জমিয়েছেন। চাহিদা ও যোগান প্রায় সমানে সমান হওয়ায় পশুর দাম গত কয়েক দিনের তুলনায় আজ বেড়ে গেছে। নগরীর কোনো কোনো পশুর হাটে দেখা গেছে হঠাৎ করেই গরুর সংকট।

শুক্রবার সকালের পর থেকেই এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে হাটে। বাজেট অনুযায়ী গরু মিলছে না গাবতলীর হাটে। তবে গরুর সংকটের কারণে হাসছেন অনেক বেপারি। যেসব বেপারি গরু রেখে দিয়েছেন তারা হাঁকছেন চড়া মূল্য। রাজধানীর ধুপখোলা, শ্মশান ঘাট, ধোলাইখাল, আফতাবনগর পশুর হাটগুলোতেও একই চিত্র লক্ষ্য করা গেছে। কোরবানি ঈদের ছুটি শুরু হওয়ার পর আজ সকাল থেকে রাজধানীর এসব অস্থায়ী হাটে বেশ ভিড় দেখা যায়। পছন্দের গরুটি কিনতে ক্রেতারা দরদাম করছেন। সব কিছু মিলে গেলে টাকা দিয়ে গরুর দড়ি হাতে নিয়ে বাড়ির পথ ধরছেন তারা। কিন্তু বেশিরভাগ ক্রেতার মুখ গোমরা। কারণ পছন্দসই পশু এখনও কিনতে পারেননি।

অনেক ক্রেতা জানিয়েছেন, কোরবানির পশু কিনতে পারেননি তারা। কারণ হিসেবে কয়েকজন ক্রেতা জানান, সকাল পর থেকেই প্রায় সব হাটে গরু কম। বড় গরু যেগুলো আছে সেগুলোর দাম আবার বেশি। গতকাল গরুর দাম যা ছিল, আজ সকাল থেকে সেই গরুর দাম দেড় গুন বেড়ে গেছে। দামের সঙ্গে পছন্দসই গরু পাননি তারা। এজন্য এখনও কিনতে পারিনি।
এদিকে গরু বিক্রেতাদের ভাষ্য, আজ শুক্রবার হওয়ায় সবচেয়ে বেশি লোক হাটে আসছে। কাল ঈদ। ফলে যারা কোরবানি দিবেন, তারা সবাই আজই পশু কিনবেন। সব দিক মিলে আজ কোরবানির শেষ হাটে গরুর দাম এমন বেড়েছে বলেই ধারণা তাদের।

শেয়ার করুন
  • 37
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    37
    Shares

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে