ব্রহ্মপুত্র-যমুনার পানি কমছে

মত ও পথ প্রতিবেদক

বন্যা
ফাইল ছবি

সারাদেশেই বৃষ্টিপাত হচ্ছে। তবে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হচ্ছে দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে। অন্যান্য অঞ্চলে হচ্ছে হালকা থেকে মাঝারি ধরনের। এ অবস্থায় দেশের বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। একটি নদীর পানি বিপৎসীমার নিচে নেমে এসেছে।

বর্তমানে বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে তিনটি নদীর পানি তিনটি পয়েন্টে। সেগুলো হলো আত্রাই নদীর পানি বাঘাবাড়ি পয়েন্টে বিপৎসীমার ১২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। আর ধলেশ্বরীর পানি এলাসিন পয়েন্টে ২৪ এবং পদ্মার পানি গোয়ালন্দ পয়েন্টে বিপৎসীমার ২৯ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

অন্যদিকে ব্রহ্মপুত্র-যমুনা নদ-নদীর পানি কমছে, যা আগামী ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। গঙ্গা-পদ্মা নদীর পানি স্থিতিশীল রয়েছে, যা আগামী ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। উত্তর-পূর্বাঞ্চলের উজানে মেঘনা অববাহিকার প্রধান নদীর পানি কমছে, যা আগামী ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।

শুক্রবার (২১ আগস্ট) বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র থেকে এসব তথ্য জানা যায়। তাদের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আগামী ২৪ ঘণ্টায় মানিকগঞ্জ, রাজবাড়ি ও ফরিদপুর জেলার নিম্নাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতি স্থিতিশীল থাকতে পারে।

বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদফতরের গাণিতিক মডেলের তথ্য অনুযায়ী, আগামী ২৪ ঘণ্টায় দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম এবং দক্ষিণ-মধ্য উপকূলীয় অঞ্চলে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস আছে, যার ফলে এই সময়ে এসব অঞ্চলের নদীর পানি দ্রুত বৃদ্ধি পেতে পারে।

গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলাদেশে উল্লেখযোগ্য বৃষ্টি হয়েছে টেকনাফে ৪৫ এবং সুনামগঞ্জের ৪৩ মিলিমিটার। আর বাংলাদেশ সংলগ্ন ভারতে বা উজানে উল্লেখযোগ্য বৃষ্টি হয়েছে চেরাপুঞ্জিতে, ৪৮ মিলিমিটার।

শেয়ার করুন
  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    2
    Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here