বিশ্বে একদিনে করোনায় আক্রান্ত প্রায় ৩ লাখ, মৃত্যু ৪৯৮৩

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রাণঘাতী ভাইরাস করোনার প্রকোপ থামছেই না। সারা বিশ্বে এখনো তাণ্ডব চালাচ্ছে অদৃশ্য ভাইরাসটি। এরই মধ্যে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দুই কোটি ৮৯ লাখ ছাড়িয়েছে। মৃত্যুর সংখ্যা নয় লাখ ২৪ হাজার ছাড়িয়েছে। সুস্থ হয়েছেন দুই কোটি ৮ লাখের বেশি মানুষ।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ৪ হাজার ৯৮৩ জনের মৃত্যু হয়েছে অদৃশ্য ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে। একই সময়ে নতুন করে আরও ২ লাখ ৮২ হাজার ৩৯১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। সুস্থ হয়েছেন দুই লাখ ২৭ হাজারের বেশি মানুষ।

করোনা নিয়ে আপডেট দেয়া ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, রবিবার সকাল পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ৮৯ লাখ ৩৮ হাজার ৯৫ জন। মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯ লাখ ২৪ হাজার ৫৫৮ জন। সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন দুই কোটি ৮ লাখ ৫ হাজার ৭৬০ জন।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে সংক্রমণ ও মৃত্যু বেশি হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটির সবকটি অঙ্গরাজ্যেই হানা দিয়েছে করোনা। যুক্তরাষ্ট্রের পরেই সংক্রমণে এগিয়ে রয়েছে লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল, ভারত, রাশিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, পেরু, মেক্সিকো, কলম্বিয়া, চিলি এবং স্পেন।

আক্রান্ত ও মৃত্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের ধারে-কাছে নেই কোনো দেশ। সেখানে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬৬ লাখ ৭৬ হাজার ৬০১ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ১ লাখ ৯৮ হাজার ১২৮ জন।

ব্রাজিলকে পেছনে ফেলে দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে এসেছে প্রতিবেশি দেশ ভারত। সেখানে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৪৭ লাখ ৫১ হাজার ৭৮৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৭৮ হাজার ৬১৪ জনের।

তৃতীয় অবস্থানে থাকা লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত করোনায় ৪৩ লাখ ১৫ হাজার ৮৫৮ জন আক্রান্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে এক লাখ ৩১ হাজার ২৭৪ জনের।

চতুর্থ অবস্থানে থাকা রাশিয়ায় এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১০ লাখ ৫৭ হাজার ৩৬২ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ১৮ হাজার ৪৮৪ জন।

সংক্রমণে ৫ম অবস্থানে থাকা পেরুতে আক্রান্ত ও মৃত্যু বাড়ছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৭ লাখ ২২ হাজার ৮৩২ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৩০ হাজার ৫৯৩ জনের।

প্রাণঘাতী ভাইরাসটির সংক্রমণ বাড়ছে বাংলাদেশেও। ১৫ নম্বর অবস্থানে থাকা বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত ৩ লাখ ৩৬ হাজার ৪৪ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। দেশে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ৭০২ জনের। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন দুই লাখ ৩৮ হাজার ২৭১ জন।

শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে