‘জনগণের নিরাপত্তা বিধানে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছি’

মহানগর ডেস্ক

আসাদুজ্জামান মিয়া
ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। ছবি - সংগৃহিত

বুধবার পল্টনে দুস্থদের মাঝে ঈদ বস্ত্র বিতরণের পর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন রমজান মাসের ১৭ দিনেও রাজধানীতে চুরি, ডাকাতি, অজ্ঞান পার্টি, ছিনতাইয়ের মতো উল্লেখযোগ্য কোনো অপরাধ সংঘটিত হয়নি।

তবে তার এই বক্তব্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার ঝড় ওঠে। অনেকে নিজেই ছিনতাইকারী ও টানা পার্টির কবলে পড়ার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করে ডিএমপি কমিশনারের সমালোচনা করেন।

আজ বৃহস্পতিবার বনানী মডেল স্কুলে দুস্থদের মাঝে ঈদ বস্ত্র বিতরণের সময় আবারও একই কথা বললেন তিনি।

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘রমজানের এই ১৭ দিনে রাজধানীতে চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, অজ্ঞান পার্টির মতো উল্লেখযোগ্য কোনো অপরাধ সংঘটিত হয়নি। মানুষ নিরাপত্তার সাথে গভীর রাত পর্যন্ত ঈদ কেনাকাটা করে নিরাপদে বাড়ি ফিরছে। কারণ আমরা প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছি। ঈদ সামনে রেখে জনগণের নিরাপত্তা বিধানে আমরা সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।

তিনি ঢাকাবাসীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘আপনারা যদি পুলিশকে সহযোগিতা করেন তাহলে আপনাদের ভালো রাখতে, নিরাপদে রাখতে আমরা আরও অনেক ভালো কাজ করতে পারব।’

ঈদ বস্ত্র নিতে আসা সবার প্রতি অনুরোধ জানিয়ে ডিএমপি কমিশনার বলেন, মাদক আমাদের সবার শত্রু। দেশ, সমাজ ও পরিবারকে বাঁচাতে সবাইকে মাদকের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। আপনার চারপাশে যদি কোনো মাদক ব্যবসায়ী থাকে তাহলে পুলিশকে নির্ভয়ে তথ্য দিন, আপনার পরিচয় গোপন রাখা হবে। মাদকের ভয়াবহতা থেকে আপনার পরিবার ও সন্তানকে রক্ষা করুন।

তিনি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন মাদককে রুখতে হবে। কারণ মাদক আমাদের রাষ্ট্র, সমাজ, পরিবার ও আগামী প্রজন্মকে ধ্বংস করছে। মাদক আমাদের দেশে তৈরি হয় না, পার্শ্ববর্তী দেশ থেকে আসে। আপনার-আমার পরিবারের কেউ মাদকাসক্ত হলে তা দুনিয়ার মাঝে এক জাহান্নাম।

মানুষ মারা গেলে একা মারা যায় কিন্তু মাদকাসক্ত হলে সে পরিবারের সবাইকে মেরে ফেলে। সেজন্য আমরা ঘোষণা দিয়েছি, ঢাকা মহানগরে কোনো মাদকের ব্যবসা থাকবে না। ইতোমধ্যে আমরা সব মাদকের আখড়া ভেঙে সামাজিক প্রতিষ্ঠান, মক্তব, ডে-কেয়ার সেন্টার, কালচারাল সেন্টার তৈরি করেছি। মাদক ব্যবসায়ী যেই হোক তাকে ছাড় দেয়া হবে না।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here