মিসরে সুখ মন্ত্রণালয়!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মিসরে ‘মিনিস্ট্রি অব হ্যাপিনেজ’ বা সুখ বিষয়ক মন্ত্রণালয় চালু করা হচ্ছে বলে দেশটির একজন মন্ত্রী দাবি করেছেন।

দেশটিতে ভোগ্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি এবং দমন-পীড়নসহ হাজারো বিরোধী নেতারা কারাবন্দী হওয়ার ঠিক একই সময়ে এমন একটি মন্ত্রণালয়ের কথা জানালেন ওই মন্ত্রী

স্থানীয় টেলিভিশন সাদা এলবালাদকে মিসরের মন্ত্রিসভার সদস্য তারেক রিফাই বলেন, মিসর দারুণভাবে সংযুক্ত আর আমিরাতের সঙ্গে সহযোগী হয়ে কাজ করছে। যাতে করে আমিরাতেরে মতো আমরাও সুখ বিষয়ক মন্ত্রণালয় চালু করতে পারি।

তিনি আরও বলেন, আমিরাতের সঙ্গে সহযোগিতার এমন সম্পর্ক মিসরে ভবিষ্যতে সুখ বিষয়ক মন্ত্রণালয় প্রতিষ্ঠার গোরাপত্তনের পূর্বাভাস দেয়। তিনি জোর দিয়ে বলেন, সরকার বিভিন্ন নাগরিক সুবিধা বৃদ্ধি করা এবং সেগুলোকে মানসম্পন্ন করে জনগণের বিশ্বাস বাড়ানোর ব্যাপারে আগ্রহী।

তবে মিসর সরকার রিফাই নামে ওই মন্ত্রীর দাবি অস্বীকার করেছে। সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, যে পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে তিনি তার অন্যরকম ব্যাখ্যা দাঁড় করিয়ে এমন মন্তব্য করেছেন।

সরকার দফতর মিসর ট্যুডে পত্রিকায় জানানো হয়েছে, গতকাল সরকার এ বিষয় সম্পর্কে বলেছে, জনগণের মধ্যে সুখ আর সন্তুষ্টির মাত্রা বাড়ানোর কথাটা তিনি অন্যভাবে ব্যাখ্যা করেছেন

প্রেসিডেন্ট আব্দেল ফাত্তাহ সিসির শাসনের বর্তমান সময়ে দেশটির বিরোধীদের নানাভাবে নির্যাতনের মাত্রা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে বলে জানিয়েছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

এদিকে হিউমান রাইটস ওয়াচের তথ্য বলছে, চলমান এই দমন অভিযানে মিসরে ৬০ হাজার বিরোধী এখন কারাগারে।

শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    7
    Shares

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে