সরকার ৬৮ সংস্থার ‘অলস’ টাকা উন্নয়ন কাজে লাগাবে

বিশেষ প্রতিবেদক

সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠক
সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠক।ছবি : সংগৃহিত

স্বায়ত্তশাসিত, আধা-স্বায়ত্তশাসিতসহ স্বশাসিত ৬৮ সংস্থার অলস পড়ে থাকা উদ্বৃত্ত অর্থ রাষ্ট্রের উন্নয়নমূলক কাজে লাগাতে একটি আইন করছে সরকার। সংস্থাগুলোর ২ লাখ ১২ হাজার ১০০ কোটি টাকা ‘অলস’ হিসেবে বিভিন্ন ব্যাংকে জমা আছে। এসব অর্থ উন্নয়নমূলক কাজে বিনিয়োগ হচ্ছে না।

সংস্থাগুলোর বাড়তি টাকা এখন থেকে রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা হবে। এ টাকা সরকারের চলমান বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে ব্যয় করা হবে। এমন বিধান রেখে ‘সরকারি কোষাগারে জমা প্রদান আইন, ২০১৯’ প্রণয়ন করেছে সরকার।

আজ সোমবার সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ আইনের খসড়া অনুমোদন দেওয়া হয়।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম জানান, আইনটি চূড়ান্ত হলে ওই সব প্রতিষ্ঠানের পরিচালন ব্যয়সহ প্রয়োজনীয় টাকা রেখে বাকি টাকা সরকারের কোষাগারে জমা নেওয়া হবে। বর্তমানে ওই সব প্রতিষ্ঠানের অর্থ ওই প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছেই আছে।

সচিব বলেন, মোট ৬৮টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বেশি জমা টাকা আছে ২৫টি প্রতিষ্ঠানের কাছে। এর মধ্যে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের কাছে জমা আছে ২১ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা। পেট্রোবাংলার কাছে ১৮ হাজার ২০৪ কোটি টাকা। ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির কাছে আছে ১৩ হাজার ৪৫৪ কোটি টাকা। চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের জমা টাকার পরিমাণ ৯ হাজার ৯১৩ কোটি। রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) জমা টাকা আছে ৪ হাজার ৩০ কোটি।

শফিউল বলেন, প্রস্তাবিত আইন অনুযায়ী এই সংস্থাগুলোর পরিচালন ব্যয়ের টাকা তাদের নিজস্ব তহবিলে থাকবে। তারপর আপৎকালীন ব্যয়ের জন্য পরিচালন ব্যয়ের আরও ২৫ শতাংশ সংরক্ষণ করতে পারবে। প্রতিষ্ঠানের পেনশন ও প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকাও রাখা যাবে। এরপর যে টাকা উদ্বৃত্ত থাকবে, সেটি সরকারি কোষাগারে জমা নেওয়া হবে।

এছাড়া বৈঠকে ‘বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশন আইন, ২০১৯’-এর খসড়া অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here