বিজেপিকে মহারাষ্ট্রে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের নির্দেশ আদালতের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

আগামীকাল বুধবার মহারাষ্ট্রে আস্থা ভোটের মাধ্যমে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে বিজেপি দলীয় দেবেন্দ্র ফড়নবিশ সরকারকে নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্ট।

গত শনিবার রাজ্যটিতে ফাডনবিশ মুখ্যমন্ত্রী পদে আচমকা শপথ নিলে রাজ্যপালের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তুলে আদালতের দ্বারস্থ হয় শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস জোট।

মঙ্গলবার সেই মামলার রায়ে আদালত আরও বলেছে, আস্থা ভোটের দৃশ্য অবশ্যই ক্যামেরায় ধারণ করা ছাড়াও তা সরাসরি সম্প্রচার করতে হবে।

এছাড়া আদালতের নির্দেশ, গোপন ব্যালটের মাধ্যমে আস্থা ভোট করা যাবে না। আর এই সভার সভাপতিত্ব করবেন অন্তর্বর্তীকালীন একজন মুখ্যমন্ত্রী।

মহারাষ্ট্রে কংগ্রেস, শিবসেনা এবং ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি (এনসিপি) জোট সরকারের ঘোষণা দেয়ার পরদিন এনসিপির নেতা অজিত পাওয়ারকে নিয়ে গোপন শপথ অনুষ্ঠানে বিজেপির ফাডনবিশ ক্ষমতা গ্রহণ করেছিলেন। নবগঠিত জোট সেই সরকারের সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করলে আদালত এই রায় দিলেন।

সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পরপরই এনসিপি প্রধান শারদ পাওয়ার এক টুইট বার্তায় গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ ও সাংবিধানিক নীতি সমুন্নত রাখায় সুপ্রিম কোর্টের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, সংবিধান দিবসে উৎসাহব্যঞ্জক এই রায়ের মাধ্যমে ভারতরত্ন ডা. বাবা আম্বেদকরের প্রতি সম্মান জানানো হলো।

তবে সোমবার সলিসিটার জেনারেল তুষার মেহতা আদালতকে বলেন, অজিত পাওয়ার ২২ নভেম্বর ৫৪ জন এনসিপি বিধায়কের স্বাক্ষরসহ সমর্থনের একটি রাজ্যপালের কাছে জমা দিয়েছিলেন। ওই চিঠি পাওয়ার পরই রাজ্যপাল ভগত সিং কোশিয়ারি দেবেন্দ্র ফাডনবিশকে সরকার গঠনের জন্য আমন্ত্রণ জানান।

আদালতকে ওই চিঠির বিষয় তুলে ধরে শীর্ষ ওই আইনজীবী জানান, এই চিঠিতে বলা হয়েছে, এর আগে আমি সরকার গঠনে অপারগ এই কথা জানিয়েছিলাম। একটি স্থিতিশীল সরকারের জন্য আমরা দেবেন্দ্র ফাডনবিশকে সমর্থন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি এবং আমরা মহারাষ্ট্রের সেবা করব।

বিজেপির পক্ষে সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল মুকুল রোহাতগি বলেন, রাজ্যপাল ১৭০ জন বিধায়কের সমর্থন দেখেছিলেন। এটি কোনও জাল চিঠি নয়। চিঠি পাওয়ার পরই তিনি বিজেপিকে সরকার গঠন ও শপথ গ্রহণের জন্য আমন্ত্রণ জানান। এই চিঠি নিয়ে রাজ্যপালের কোনো সন্দেহ ছিল না।

এদিকে শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস জোট ১৫৪ জন বিধায়কের স্বাক্ষরসহ আদালতে সরকার গঠনের প্রয়োজনীয় তাদের সংখ্যাগরিষ্ঠতার চিঠি জমা দেয়। তারা আদালতে ওই চিঠি দেয়ার মাধ্যমে মহারাষ্ট্র বিধানসভায় নবগঠিত সরকারকে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণে আস্থা ভোট গ্রহণের নির্দেশ দিতে আদালতের কাছে আর্জি জানায়।

আদালত নির্দেশ দিয়েছে আগামীকাল বুধবার সন্ধ্যার মধ্যে মহারাষ্ট্রের বিধানসভায় আস্থা ভোট সম্পন্ন করতে হবে। তার আগে বিকেল ৫টার মধ্যে নতুন বিধায়করা শপথ নেয়ার নির্দেশও দেয়া হয়েছে।

প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে সুপ্রিম কোর্টের তিন বিচারপতির একটি বেঞ্চ মঙ্গলবার এই রায় দেন।

শেয়ার করুন
  • 11
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    11
    Shares

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে