বন্দরে সেপটিক ট্যাংক বিস্ফোরণে দুই ভাইসহ নিহত ৩

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় সেপটিক ট্যাংক বিস্ফোরণে দুই ভাইসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আরও পাঁচজন। শুক্রবার (৮ মে) সকাল ৬টার দিকে বন্দর উপজেলার মোল্লাবাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হচ্ছে- দুই সহোদর মাসনুন (১২) ও জিসান (৮) এবং আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা লাবনী (৩০)।

বন্দর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বন্দরের মোল্লাবাড়ি এলাকায় ৫ তলা ভবন রাবেয়া মঞ্জিলের নিচতলার একটি কক্ষে সেপটিক ট্যাংকটি অবস্থিত। সবাই যখন ঘুমিয়ে ছিল তখনই সকাল ৬টার দিকে বিকট শব্দে সেপটিক ট্যাংকে বিস্ফোরণ ঘটলে কক্ষটি বিধ্বস্ত হয়। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হয় দুই সহোদর মাসনুন ও জিসান।

তিনি আরও জানান, ট্যাংক বিস্ফোরণের বিকট শব্দে রাবেয়া মঞ্জিলের পাশের একটি চারতলা ভবনের চারতলার একটি দেয়াল পার্শ্ববর্তী একটি টিনশেড ভবনের ওপর পড়লে সেখানে অন্তঃসত্ত্বা নারী লাবনী গুরুতর আহত হন। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় লাবনীর মেয়ে নাবিলাও গুরুতর আহত হয়। এ বিস্ফোরণে আহত হয়েছেন পার্শ্ববর্তী ভবনের মালিক ও তার এক ছেলে এক মেয়েসহ মোট পাঁচজন। আহতরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক আব্দুল্লাহ আল আরেফীন বলেন, সকালে বিস্ফোরণের সংবাদে আমাদের বন্দর স্টেশনের সদস্যরা গিয়ে দুই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে। সেখানে গুরুতর আহত অন্তঃস্বত্ত্বা নারীকে ঢাকা মেডিকেলে নেয়ার পথে তিনি মারা যান বলে বন্দর স্টেশন অফিসারের মাধ্যমে জানতে পেরেছি। এ ছাড়া আরও ছয়জন আহত হয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, রাবেয়া মঞ্জিলের নিচতলার একটি কক্ষে সেপটিক ট্যাংকটি অবস্থিত। সেখানে গ্যাস নির্গমনের পথ বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। যে কারণে গ্যাস জমতে জমতে আজ বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটেছে।

এদিকে দুর্ঘটনার পর বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শুক্লা সরকার ঘটনাস্থলে গিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ তিনটি বাড়িসহ পাশের আরও দুটি বাড়ি সিলগালা করে দিয়েছেন।

শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে