যে কোনো দলকে হারানোর ক্ষমতা আমাদের আছে : তামিম

ক্রীড়া প্রতিবেদক

তামিম ইকবাল
তামিম ইকবাল। ফাইল ছবি

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল বলেছেন, বিগত দশ বছরে দেশের ক্রিকেটে যে বড় পরিবর্তন ঘটেছে তা হলো, যে কোনো দলকে যে কোনো কন্ডিশনে হারানোর ক্ষমতা টাইগারদের রয়েছে।

ভারতীয় সাবেক ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকার সঞ্জয় মঞ্জরেকারকে সম্প্রতি ইএসপিএন ক্রিইনফোর মাধ্যমে দেওয়া এক ভিডিও সাক্ষাৎকারে টাইগার ওপেনার বলেন, ‘একটা সময় ছিল যখন আমরা মাঠে নামতাম যতটুকু সম্ভব ম্যাচকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ করার লক্ষ্য নিয়ে। ওই সময় প্রতিপক্ষ দলের সঙ্গে আমরা জয়ের কথা ভাবতে পারতাম না। তবে, গত দশ বছরে অনেক কিছুরই পরিবর্তন ঘটেছে। এখন আমরা বিশ্বাস করি যে কোনো দলকে যে কোনো কন্ডিশনে হারানোর সামর্থ্য আমাদের আছে। সমর্থকরাও বিশ্বাস করে আমরা যে কোনো দলের বিপক্ষে জয়ের ক্ষমতা রাখি। তাই তাদের প্রত্যাশাও বেড়ে গেছে বহুগুণ।’

তবে টেস্ট ও টি-২০ ফর্মেটে এখনো প্রত্যাশা অনুযায়ী নিজেদের মেলে ধরতে পারছে না বাংলাদেশ। অবশ্য ওয়ানডে ক্রিকেটে তারা এখন ভিন্ন একটি দল। সেখানে বিশ্বের যে কোনো শক্তিশালী দলকেই নিয়মিতভাবেই হারাতে পারছে টাইগাররা।

বিশেষ করে ২০১৫ সাল থেকে বাংলাদেশের ক্রিকেটে নতুন বিপ্লব ঘটেছে। ওই সময় দলটি প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ ক্রিকেটের কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে। পরবর্তীতে ভারত, পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওডিআই সিরিজ জয়ের মাধ্যমে টাইগাররা প্রমাণ করেছে যে, বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে খেলাটি তাদের কাছে অপ্রত্যাশিত ঘটনা ছিল না।

২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে সেমিফাইনালে পৌঁছে আরো একবার নিজেদের যোগ্যতার প্রমাণ দিয়েছে বাংলাদেশ ওয়ানডে ক্রিকেট দল। এরই ধারাবাহিকতায় প্রথমবারের মতো একাধিক দলের টুর্নামেন্টের শিরোপা জয় করেছে বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় সিরিজের শিরোপা জয় করে বাংলাদেশ।

পরে ২০১৯ বিশ্বকাপের শুরুটাও বেশ ভালভাবে করেছিল বাংলাদেশ। তবে মাঝপথে ছন্দ হারিয়ে অষ্টম অবস্থান নিয়ে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেয় বাংলাদেশ। এরপর অবশ্য কিছুটা বিবর্ণ চেহারা ধারণ করে টাইগাররা। বিশ্বকাপের পরপরই শ্রীলংকায় অনুষ্ঠিত তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয় বাংলাদেশ।

পরে অবশ্য নিজেদের মাটিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে ঘুরে দাঁড়ায় টাইগাররা। তারপরও এখন পর্যন্ত স্বরূপে ফিরেনি তারা। এমনই এক পরিস্তিতিতে মাশরাফির পরিবর্তিত হিসেবে ওয়ানডে দলের অধিনায়ক নিযুক্ত হয়েছেন তামিম ইকবাল। এখন তার প্রথম কাজ হবে দলকে সেই সুদিনে ফিরিয়ে আনা।

তামিম বলেন, ‘অধিনায়ক হিসেবে আমি খুব একটা অভিজ্ঞ নই। যে কারণে আমার ভুল হবার সুযোগ আছে। তবে দলের এগিয়ে যাওয়াটা আমি নিশ্চিত করব।’

সব শেষে তিনি বলেন, ‘এখন দেখা যাক কি হয়। আমি যদি সঠিক কাজটা করতে পরি তাহলে এই দায়িত্ব পালন করে যাব। আর যদি সেটি করতে না পারি তাহলে আমার প্রথম কাজ হবে দায়িত্ব থেকে সরে যাওয়া।’

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here