নকল মাস্ককাণ্ড: গ্রেপ্তার শারমিন জাহান ঢাবি থেকে বরখাস্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক

বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে নকল মাস্ক সরবরাহের মামলায় গ্রেপ্তার শারমিন জাহানকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। ঢাবির এই সহকারী রেজিস্ট্রার শিক্ষা ছুটি নিয়ে বাণিজ্যিক কর্মকাণ্ডে নিয়োজিত হওয়ায় তার বিরুদ্ধে এই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

রোববার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার শারমিন জাহানের শিক্ষা ছুটিতে থাকা অবস্থায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমতি ব্যতীত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে ব্যবসা-বাণিজ্য পরিচালনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধি-বিধান ও চাকরি শৃঙ্খলা পরিপন্থী। অধিকন্তু বিএসএমএমইউ নকল এন-৯৫ মাস্ক সরবরাহের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা হওয়ায় ও পুলিশ রিমান্ডে থাকায় তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের মর্যাদা ও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করেছেন। এমতাবস্থায় তাকে আজ রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকরি থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। একইসঙ্গে তাকে সাত কার্যদিবসের মধ্যে কারণ দর্শানোর জন্য নোটিশ প্রদান করা হয়েছে।

গত ৪ জুলাই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে করোনা রোগীদের চিকিৎসা শুরু হয়। সেখানে ১১ হাজার এন-৯৫ মাস্ক সরবরাহের অর্ডার পায় শারমিনের প্রতিষ্ঠান ‘অপরাজিতা ইন্টারন্যাশনাল।’ তবে চার দফায় তিন হাজার ৪৬০টি মাস্ক দেয়ার পর শেষের দুই বারে নকল ও মানহীন মাস্ক দেয়ার অভিযোগে গত বৃহস্পতিবার রাতে তার বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় মামলা করে বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষ। পরদিন রাতেই গ্রেপ্তার শারমিন এখন গোয়েন্দা পুলিশের হেফাজতে তিন দিনের জিজ্ঞাসাবাদে রয়েছেন।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সহকারী রেজিস্ট্রারের গ্রেপ্তারের পর তোলপাড় শুরু হয় ঢাবি প্রশাসনে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও অনেকে বিষয়টি নিয়ে কড়া সমালোচনা করেন। শারমিনের এমন কাজে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে দাবি করে সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের অনেকেই তার শাস্তি চান।

শনিবার আদালতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করে ষড়যন্ত্রের শিকার বলে জানান শারমিন। অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত থাকাবস্থায় তার ব্যবসা করা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন খোদ আদালত। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকরিতে থেকে ব্যবসা করে সরকারি আরেকটি প্রতিষ্ঠানে মাস্ক সরবরাহ করতে পারেন কি-না আদালতের এমন প্রশ্নে কাঠগড়ায় দাঁড়ানো শারমিন নিরুত্তর ছিলেন।

এসময় পিপি হেমায়েত উদ্দিন খান কোন কর্তৃত্ববলে রাষ্ট্রীয় টাকায় বেতন নিয়ে আবার ব্যবসা করছেন তা জানতে চান। তখন শারমিন বলেন, ‘কেবল আমি নই, আমার মতো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরও অনেকে একই কাজ করছেন। আমার দোষ কোথায়।’

ছাত্রলীগের ঢাবির কুয়েত মৈত্রী হল কমিটির একসময়ে নেতৃত্ব দেয়া শারমিন জাহান আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটিতেও ছিলেন। ঢাবির ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ থেকে পাস করে ২০১০ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার হিসেবে যোগদান করেন তিনি।

এরপর ২০১৬ সালে চীন সরকারের স্কলারশিপ পেয়ে পিএইচডি করতে তিনি চীনের উহানে যান। করোনার কারণে সেখানে লকডাউন শুরু হলে ২৩ জানুয়ারি তিনি দেশে ফিরে আসেন। চীনে থাকা অবস্থায় শারমিন ২০১৯ সালের মার্চ মাসে ঢাকার বিজয়নগরে ‘অপরাজিতা ইন্টারন্যাশনাল’ নামের একটি প্রতিষ্ঠান খুলে পণ্য সরবরাহের ব্যবসা শুরু করেন।

দেশে করোনার প্রকোপ শুরু হলে বিভিন্ন জায়গায় ব্যক্তি পর্যায়ে মাস্ক ও অন্যান্য সুরক্ষা সামগ্রী বিক্রি করেন। তবে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে প্রথম তিনি বঙ্গবন্ধু মেডিকেলেই মাস্ক দিয়েছিলেন। এছাড়া নীলক্ষেতে তার টেইলারিংয়ের একটি দোকান আছে।

শেয়ার করুন
  • 8
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    8
    Shares

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে