বাংলাদেশের শর্তে রাজি শ্রীলঙ্কা!

বিশেষ প্রতিনিধি

যা চেয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি), পেয়েছে তারও বেশি! নিজ দেশের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনার পর শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের (এসএলসি) সংশোধিত প্রস্তাবে সেরকম কিছুই রয়েছে মমিনুল হকদের জন্য। কোয়ারেন্টিনের ঘেরাটোপ সরিয়ে এখন শুধু আইসোলেশনে থাকবে বাংলাদেশ দল। সেটিও মাত্র সাত দিনের এবং এ সময়কালে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাফেলায় আর বাধা নেই। এমনকি অনুশীলনও করতে পারবে বাংলাদেশ টেস্ট দল। গতকাল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনার ফলপ্রসু হওয়ার খবর জানিয়েছে এসএলসি। সংশোধিত প্রস্তাবটি আজ বিসিবিতে পৌঁছানোর কথা।

দুই সপ্তাহের জন্য কোয়ারেন্টিনের ‘বন্দিশালা’য় থাকতে হবে, এতে কোনো ছাড় নেই—করোনা পরিস্থিতির কারণে শ্রীলঙ্কায় এমন ভ্রমণ জটিলতার খবর জেনে সফরে যাওয়ার অনিচ্ছার কথা জানিয়ে দিয়েছিল বিসিবি। শুধু তা-ই নয়, জাতীয় দলের সঙ্গে হাই পারফরম্যান্স মিলিয়ে প্রায় ৬০ জনের যে বহর পাঠানোর পরিকল্পনা ছিল, সেটিও অগ্রাহ্য করে শ্রীলঙ্কা।

তবে ১২ সেপ্টেম্বরে পাঠানো সে প্রস্তাবের জবাবে ‘না’ করে দেয় বিসিবি। পরদিন বিসিবির পক্ষ থেকেও সামান্য ছাড় দিয়ে নতুন প্রস্তাব পাঠানো হয়। এক সপ্তাহের কোয়ারেন্টিন এবং এইচপির সফর বাতিল করে খেলোয়াড়-কর্মকর্তাসহ ৪২ জনের বহরকে আতিথ্য দেওয়ার প্রস্তাব পাঠায় বিসিবি।

নতুন এ প্রস্তাব নিয়ে গতকাল নিজেদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন করোনা টাস্কফোর্সের সঙ্গে আলোচনা করেছে এসএলসির প্রতিনিধিদল। নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, বিসিবির প্রস্তাব গ্রহণও করেছে শ্রীলঙ্কার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। সে মোতাবেক নতুন প্রস্তাবনা পাঠিয়েও দেওয়া হয়েছে বিসিবি বরাবর।

নতুন প্রস্তাবনায় অনেক ইতিবাচক পরিবর্তন আছে বাংলাদেশ দলের জন্য। প্রথমত, কোয়ারেন্টিনের পরিবর্তে শুধু সাত দিন আইসোলেশনে থাকলেই হবে। শ্রীলঙ্কার পাঠানো আগের প্রটোকল অনুযায়ী ১৫ দিন হোটেলকক্ষে বন্দি থাকতে হতো ক্রিকেটারদের। এমনকি টিম মিটিংও করতে হতো জুম-এ। এখন সে দেশে হোটেলে চেক ইন করার পর নির্বিবাদে হোটেল রুম থেকে বেরোতে পারবেন মমিনুলরা। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অনুশীলনও করতে পারবেন।

আইসোলেশনের একমাত্র বাধ্যবাধকতা সামাজিক দূরত্ব কঠোরভাবে বজায় রাখা। সেটি আরো নির্বিঘ্ন করতে জনবিরল শহর হাম্বানতোতায় তাঁবু ফেলার প্রস্তাব করেছে এসএলসি। কিন্তু বিসিবির প্রথম পছন্দ গল। সেটি একটু খোলামেলা হওয়ায় ডাম্বুলাতেই ক্যাম্প করবে বাংলাদেশ দল। অবশ্য আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না আসায় কিছুটা সতর্ক বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘শুনেছি ওরা সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করেছে। সেই আলোচনা ফলপ্রসুও হয়েছে। তবে সরকারী সিদ্ধান্ত তো আর চট করে আসে না। আশা করি কাল (আজ) জানতে পারব।’

সেই সিদ্ধান্ত যে ইতিবাচক হবে, এমন একটা সৌরভ দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডেই বইতে শুরু করেছে।

এতে পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী তিন দফা করোনা পরীক্ষা করিয়ে ২৭ তারিখ কলম্বোর উদ্দেশে উড়াল দেবে বাংলাদেশ দল। অবশ্য নেমেই পরীক্ষা করাতে হবে আরেকবার। যারা ‘নেগেটিভ’ তাঁরা পরদিন থেকে আইসোলেশনের নিয়ম মেনে অনুশীলনও করতে পারবেন। আর দুই সপ্তাহ পর থেকে তো নিয়মিত অনুশীলনের পাশাপাশি রয়েছে প্রস্তুতি ম্যাচ। ২৪ অক্টোবর ক্যান্ডিতে প্রথম টেস্টের প্রথম দিনে প্রায় সাত মাস পর ক্রিকেটে ফিরবে বাংলাদেশ।

শেয়ার করুন
  • 4
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    4
    Shares

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে